Real Time True News

করোনা: ছবির চুম্বন বা ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং?

বিএনএ,বিনোদন: করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সারাবিশ্বে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে এনিয়ে চিন্তায় পড়ে গেছেন সিনেমার পরিচালকরা।

কীভাবে হবে ছবির চুম্বন বা ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং? এমন প্রশ্নই করেছেন কাহানি, পিকু-খ্যাত বলিউড পরিচালক সুজিত সরকার। ইনস্টাগ্রামে দেয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, এই ভাইরাসের সংক্রমণ পরবর্তী পরিস্থিতিতে কীভাবে চুম্বন বা ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং হবে? করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাকে ধরা হচ্ছে অন্যতম প্রতিরোধক।

এই ঝড় থেমে পরিস্থিতিও হয়তো অনেকটাই স্বাভাবিক হবে একদিন। তবে ভয় কি একেবারে মুছে যাবে? সেই প্রশ্ন তুললেন নামি বাঙালি পরিচালক। ওই পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টায় কতটা গুরুত্ব পাবে। তাহলে কি অভিনেতা-অভিনেত্রীরা ঘনিষ্ঠ হয়ে অভিনয় করতে সহজ বোধ করবেন? সুজিত লেখেন, “করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে সিনেমার জন্য কীভাবে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং হবে? বিশেষ করে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য কিংবা চুম্বনের দৃশ্য। তবে কি তখন সামাজিক দূরত্বের বিষয়টার গুরুত্ব থাকবে না? নাকি ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিংয়ের জন্য পরিচালকদের অন্য পদ্ধতি নিতে হবে?”

এই পোস্টের মন্তব্যের ঘরে অভিনেত্রী দিয়া মির্জা লেখেন, “সিনেমা বানানোর পুরো প্রক্রিয়াটাই তো অন্তরঙ্গ হয়েই করতে হয়। একসঙ্গে অনেক মানুষ একত্রিত হয়ে একটা ছবি বানায়। আর আপনি ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের কথা বলছেন! কীভাবে সবকিছু বদলে যাবে? আমরা কী মাস্ক আর গ্লাভস পরে কাজ করবো? শুধু সময়ই সব কিছুর উত্তর দেবে।” দিয়ার পাশাপাশি আরও অনেকে মন্তব্য করেন।

কারো মতে, ৬০-৭০ এর দশকে ফিরে যান, যেখানে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য হিসাবে শুধুই দুটি ফুলের দোলা দেখানো হতো।” উদ্বিগ্ন হয়ে একজন লেখেন, “একসঙ্গে ৫০জনের বেশি মানুষ এক হয়ে শুটিং করবেন কী করে?” এমনও মত এসেছে, “শুটিংয়ের আগে সমস্ত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের শারীরিক পরীক্ষা করানো উচিত” বা “ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শ্যুটিং হবে ভার্চুয়ালি।

বিএনএন/আরিফুল ইসলাম